আন্তর্জাতিক মাজলিসু রুইয়াতিল হিলাল
৩৭ ছফর শরীফ ১৪৪৪ হিজরী

খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

إِنَّ أَوَّلَ بَيْتٍ وُضِعَ لِلنَّاسِ لَلَّذِي بِبَكَّةَ مُبَارَكًا وَهُدًى لِّلْعَالَمِينَ
অর্থ : “নিশ্চয়ই সর্বপ্রথম যে ঘর মুবারক মানবজাতির জন্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তা তো ওই ঘর মুবারক যা মক্কা শরীফ উনার মধ্যে অবস্থিত। উহা বরকতময় এবং বিশ্ববাসীর জন্য পথপ্রদর্শক।” (পবিত্র সূরা আলে ইমরান শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৯৬)

পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “কা’বা শরীফ উনার নিচের অংশটুকু পৃথিবীর প্রথম যমীন।”

খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা কাফির, মুনাফিকদের অনুসরণ করনা অর্থাৎ ইহুদী, মুশরিক ও নাছারাদেরকে অনুসরণ-অনুকরণ কর না।” আর পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “যে ব্যক্তি যে সম্প্রদায়ের অনুসরণ করবে সে ব্যক্তি তাদেরই দলভুক্ত বলে গণ্য হবে।”

কাজেই, মুসলমানদের জন্য সময় নির্ধারণের ক্ষেত্রেও কাফির, মুশরিক, ইহুদী-নাছারাদের অনুসরণ করা কস্মিনকালেও শরীয়তসম্মত হবে না।

সুতরাং গ্রীনিচের পরিবর্তে প্রথম যমীন কা’বা শরীফ যা ইহুদী-নাছারাসহ সকলেরই রসূল হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম উনারও ক্বিবলা তা থেকে পৃথিবীর সকল মানুষের জন্য সমস্ত স্থানের সময় নির্ধারণ করা উচিত।

আমাদের মুসলমানদের প্রতিদিনের নামাযের সময়সূচি তৈরি হয় প্রতিটি দেশের স্থানীয় সময় অনুযায়ী। আর প্রতিটি দেশের স্থানীয় সময় নির্ধারিত হয়েছে গ্রীনিচের সময়কে আদর্শ সময় ধরে। নাঊযুবিল্লাহ!

অথচ গ্রীনিচের পরিবর্তে পবিত্র কা’বা শরীফ থেকেই পৃথিবীর সকল স্থানের সময়-অঞ্চল নির্ধারিত হওয়া উচিত ছিল। যেখানে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কা’বা শরীফ উনার সম্পর্কে ইরশাদ মুবারক করেন, “যা নিয়ামত দ্বারা পূর্ণ এবং মানব ও জিন জাতির জন্য পথ প্রদর্শক।” সেখানে পবিত্র কা’বা শরীফ অবশ্যই সময়েরও পথ প্রদর্শক। অথচ আজ মুসলমানদের প্রতিদিনের সময় নিরূপণ হয় ব্রিটিশদের গ্রীনিচের সময় ধরে। নাঊযুবিল্লাহ!

গ্রীনিচ রয়াল অবজারভেটরি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৬৭৫ সালে। গ্রীনিচ মেরিডিয়ানকে মূল মধ্যরেখা (প্রাইম মেরিডিয়ান) হিসেবে বিবেচনা করা হয় ১৮৮৪ সালে। কোন বিখ্যাত এবং ঐতিহাসিক স্থান বলে গ্রীনিচ থেকে প্রাইম মেরিডিয়ান কল্পনা করা হয়নি বরং এর পেছনে ছিল রাজনৈতিক কারণ। এক সময় ব্রিটিশরা পৃথিবীতে অন্যায়ভাবে আধিপত্য বিস্তার করতে পেরেছিল বলে তারা যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় গ্রীনিচ থেকে সময় নির্ধারণের বিষয়টি পৃথিবীর উপর চাপিয়ে দিয়েছে। অথচ গ্রীনিচের পূর্বেও ব্রাসেলস, কোপেনহেগেন, আলেকজান্দ্রিয়া, জেরুজালেম, মাদ্রিদ, প্যারিস এ সকল এলাকাও প্রাইম মেরিডিয়ান হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে।

পৃথিবীর কোন স্থানের উপর দিয়ে যদি প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করতে হয়, পৃথিবীর কোন স্থানের সময়কে প্রমাণ সময় ধরে যদি পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলের সময় নির্ধারণ করতে হয়, তবে সেই স্থান হওয়া উচিত পবিত্র কা’বা শরীফ।
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত হয়েছে- সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “পবিত্র কা’বা শরীফ ছিল পানির উপর একটি ছোট পাহাড় এবং উনার নিচ দিয়ে পৃথিবী সৃষ্টি হয়।” অর্থাৎ পবিত্র কা’বা শরীফ উনার নিচের অংশটুকু ছিল পৃথিবীর প্রথম যমীন যা বিশাল সাগরের মাঝে সৃষ্টি হয়।

পরবর্তীতে সেই পবিত্র স্থান উনার চতুষ্পার্শ্বে তা বিস্তার লাভ করতে থাকে এবং প্রথমে একটি বিশাল মহাদেশের সৃষ্টি হয়। সে কারণে পবিত্র মক্কা শরীফ উনাকে বলা হয় ‘উম্মুল কুরা’। বিজ্ঞানও স্বীকার করেছে, বর্তমানে যে সাতটি মহাদেশ আছে সেগুলো মূলত একটি মহাদেশ আকারে ছিল; যাকে বলা হয় Mother Continent বা Pangaea. পরবর্তীতে এগুলো একে অপরের কাছ থেকে দূরে সরতে শুরু করে এবং সরতে সরতে বর্তমান অবস্থায় পৌঁছেছে।

উল্লেখ্য, পবিত্র কা’বা শরীফ উনাকে ধারণকারী পবিত্র মক্কা শরীফ থেকে পবিত্র দ্বীন ইসলাম সমগ্র পৃথিবীব্যাপী বিস্তার লাভ করেছে, আর পবিত্র কা’বা শরীফ থেকেই পৃথিবীর যমীন বিস্তার লাভ করেছে; তাহলে পৃথিবীর সকল ‘সময় অঞ্চল’ (Time Zone) কেন এই পবিত্র কা’বা শরীফ থেকেই চতুষ্পার্শ্বে নির্ধারিত হবে না?

বরং এটাই সত্য যে, পবিত্র কা’বা শরীফ উনার উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করে পৃথিবীর সকল ‘সময় অঞ্চল’ (Time Zone) নির্ধারণ করলে তা পবিত্র কুরআন শরীফ এবং পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের স্পষ্ট অনুসরণ করা হবে। তখন উক্ত আমল উনার মধ্যে থাকবে রহমত, বরকত ও সাকীনা।

পবিত্র কা’বা শরীফ উনার উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করলে আন্তর্জাতিক তারিখ রেখার অবস্থান হয় সুবিধাজনক স্থানে।

গ্রীনিচের উপরে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা অযৌক্তিক এবং প্রচলিত আন্তর্জাতিক তারিখ রেখাও আঁকাবাঁকা। সুতরাং পুনরায় পবিত্র কা’বা শরীফ উনার উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা সহজেই সম্ভব এবং যুক্তিসঙ্গত। তখন আন্তর্জাতিক তারিখ রেখাসহ সকল বিষয়ের সহজ সমাধান পাওয়া যাবে। খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি তো পূর্বেই ইরশাদ মুবারক করেন “পবিত্র কা’বা শরীফ মানবজাতির জন্য পথ প্রদর্শক।”