আন্তর্জাতিক মাজলিসু রুইয়াতিল হিলাল
১৫ শাওওয়াল শরীফ ১৪৪৩ হিজরী

১৪২৫ হিজরী উম্মুল কুরার ক্যালেন্ডারে পহেলা যিলহজ্জ শরীফ উনার তারিখ ছিলো ১২ই জানুয়ারী। কিন্তু সউদী জুডিশিয়াল ডিপার্টমেন্ট ১১ জানুয়ারী থেকে মাস শুরু করে। সে বছর ইয়াওমুল ইছনাইনিল আযীম শরীফ ১০ই জানুয়ারী দিবাগত সন্ধ্যায় আকাশ ছিল মেঘাচ্ছন্ন, চাঁদ দেখা যায়নি। কিন্তু রাতে দুজন সাক্ষী এসে উপস্থিত হয় এবং তারা চাঁদ দেখার দাবি করে। তাদের মিথ্যা সাক্ষ্য অনুযায়ী পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছিলো।

এখন সউদী আরবে এই মিথ্যা সাক্ষীর বিষয়টি একটি সাধারণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। রিয়াদ থেকে মাঝে মাঝে কয়েকজন সাক্ষী এসে এমন সময় চাঁদ দেখার খবর পরিবেশন করে যেদিন পৃথিবীর কোথাও চাঁদ দৃশ্যমান হয় না।

উদাহরণ হিসেবে ১৪৩৫ হিজরী সনের পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার চাঁদের প্রতিবেদন এখানে উপস্থাপন করা হলো।

২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৪ সউদী আরবে চাঁদের অবস্থান ছিল নিম্নরূপ-

চাঁদের বয়স: ১০ ঘণ্টা ৫৭ মিনিট

চাঁদের উচ্চতা: ১৪ মিনিট

কৌণিক দূূরত্ব: ৪ ডিগ্রি ২ আর্ক মিনিট

চন্দ্রাস্ত ও সূর্যাস্তের সময়ের পার্থক্য: ৫ মিনিট

চাঁদ দেখার ফলাফল: চাঁদ দেখা যায়নি এবং দেখা যাওয়ার কোনো সম্ভাবনাও ছিল না কিন্তু সউদী ওহাবী সরকার মিথ্যা সাক্ষীর সাক্ষ্য অনুযায়ী পবিত্র যিলহজ্জ মাস উনার তারিখ ঘোষণা করে। নাঊযুবিল্লাহ!